LOADING

কোনটা দরকার? স্কীল নাকি এক্সপেরিয়েন্স?

কোনটা দরকার? স্কীল নাকি এক্সপেরিয়েন্স?

by admin January 13, 2019
কোনটা দরকার? স্কীল নাকি এক্সপেরিয়েন্স?
আজকের লেখাটা মাথায় আসছে শুধুমাত্র  একটা শব্দ থেকে। শব্দটি হলো Professionalism (প্রফেশনালিজম)।আমরা প্রায় সবাই Profession (পেশা) শব্দটির সাথে পরিচিত আছি। তবে Professionalism শব্দটির সাথে অনেকেই পরিচিত নই। এই শব্দটির অর্থ হলো পেশাদারিত্ব। সহজ ভাষায় বলতে গেলে কোন কাজের সর্বোচ্চ দক্ষতা অর্জন এবং ঐ কাজের ছোট বড় সকল বিষয়কে সম্পূর্ণ গুরুত্ব দেওয়াকে পেশাদারিত্ব বলে। এর আরো অর্থ আছে সেদিকে না গেলাম। 
বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক  যুগে যেখানে আপনাকে প্রতিনিয়ত কারো না কারো সাথে প্রতিযোগিতা করতে হবে। সেটা সরকারি চাকরি, বেসরকারি চাকরি, ব্যবসা কিংবা পড়াশোনা হোক সবক্ষেত্রে প্রতিযোগিতা বাধ্যতামূলক। এই প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে অব্যশই আপনাকে Professionalism (পেশাদারিত্ব) অর্জন করতে হবে। তাছাড়া কেউই এই প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে পারবে না এটাই বাস্তব। 
Image result for skill development
আমাদের দেশে পেশাদারিত্বের খুবই অভাব। চাকরি, ব্যবসা কিংবা পড়াশোনা সব ক্ষেত্রে। গুগল, ফেসবুক, অ্যামাজনের মত বড় বড় কোম্পানিতে ভারত, চীন, ফিলিপাইনের মত অনেক দেশের লোক কর্মরত আছে। এমনকি তারা এসব কোম্পানির বড় বড় পদেও দায়িত্বরত আছে। এদিক থেকে এসব কোম্পানিতে বাংলাদেশের লোকের সংখ্যা খুবই কম। তার বড় একটা কারণ হলো পেশাদারিত্বের অভাব।
প্রতিযোগিতার ক্ষেত্রে আপনাকে যদি কাউকে ছাড়িয়ে যেতে হয় সেটা সম্ভব শুধুমাত্র পেশাদারিত্ব দিয়ে। আমাদের দেশে চাকরির বাজার খুবই প্রতিযোগিতামূলক। সেখানে টিকে থাকতে হলে অবশ্যই আপনাকে অন্য কারো থেকে বেশি পেশাদারিত্ব অর্জন করতে হবে। আর আমাদের খুবই বাজে একটা বদঅভ্যাস আছে সেটা হলো কাজে ফাঁকি দেওয়া। যেটি আপনার পেশাদারিত্বকে একদম অর্থহীন করে দিতে পারে। আমাদের দেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ কম। এই পেশাদারিত্ব লোকের অভাবের কারণে নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করাও সম্ভব হচ্ছে না। 
আমাদের একটা খুবই বাজে ভাবনা আছে সেটা হলো কোন বিষয়ের ওপর অল্প কিছু জ্ঞ্যান ও দক্ষতা অর্জন করলেই আমরা ভাবি যথেষ্ট। এদিয়ে অনেক কিছু করা যাবে। আমার বাস্তব একটা ঘটনা বলি আমি ফ্রিল্যান্সিং এর ওপর সরকারি একটা প্রশিক্ষণ নেই। সরকারি প্রশিক্ষণ বুঝতেই পারছেন কেমন আর হবে। তারপরও যা শিখেছি এবং আমার চেষ্টা দিয়ে কিছুটা এগিয়ে ছিলাম। কিছুটা উপার্জনও করেছিলাম। এটা আমার পরিচিত অনেকেই জানে। একদিন একজনে বলে ভাই আপনি তো খুব সহজে ইনকাম করছেন কোনো কষ্ট নেই আমার একটা ল্যাপটপ আছে একটু শিখিয়ে দেন না৷ বলি কি কাজ পারো বলে টাইপিং পারি। মিনিটে স্পীড  কত। বলে ততটা স্পীড নেই। বুঝেন এখন এই হলো আমাদের চিন্তা ভাবনা। 
এবার আসি আমাদের শিক্ষা ক্ষেত্রে। “অল্প বিদ্যা ভয়ংকারী” এই প্রবাদটা আমরা সবাই জানি। মুখস্তগত বিদ্যা এবং দুই একটা সার্টিফিকেট অর্জন করেই আমরা অনেকেই ভাবি এবার বুঝি বিশাল শিক্ষিত হয়ে গেছি। আর দরকার নেই। তখন তার শিক্ষা অর্জনটা থেমে যায়। এই ভাবনার জন্য তার সফলতা টাও ওখানেই থেমে যায়। এর জন্যই আমাদের দেশে বিল গেটস, জাকারবার্গ এর মত কেউ তৈরি হয় না। 
এই সব নগন্য ভাবনা থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। নতুন কিছু শেখার ও জানার প্রবল আগ্রহ থাকতে হবে। যেই কাজটাই পারিনা কেন। সেই কাজ সম্পর্কে নতুন কিছু শেখার ও জানার কৌতুহল থাকতে হবে। জানা ও শেখার  ক্ষুদাটা নিজের ভিতর তৈরি করতে হবে। তাতে দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে।  তাহলেই আমাদের তরুণ সমাজ বেকার থেকে বেরিয়ে দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত হবে। 
Change your bad thinking, achieve  your learning ability. Increase your learning ability,  Increase your skill ability.
God luck.
রিপোর্টারঃ Rayan Rakib

Social Shares

Related Articles

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *